School logo

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার ভাংবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে স্কুলের লোগোর জায়গায় ভারতীয় নায়িকা ইলিয়ানা ডি’ক্রুজের ছবি। শিক্ষা বোর্ডের কর্মকর্তারা এ কারণে বিদ্যালয়টির সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের রুচি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কর্তৃপক্ষ প্রায় তিন বছর আগে অধীন কলেজ ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোর জন্য ওয়েবসাইট প্রকল্প প্রণয়ন, অর্থায়ন ও বাস্তবায়ন করে। এতে কারিগরি সহযোগিতা দেয় সেফরন করপোরেশন লিমিটেড নামের একটি প্রতিষ্ঠান।

school logoবৃহস্পতিবার বিকেলে ভাংবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে (http://bhangbariasecondaryschool.jessoreboard.gov.bd/) গেলে বিদ্যালয়ের নামের পাশে ‘লোগো’ জায়গায় ভারতীয় নায়িকা ইলিয়ানা ডি’ক্রুজের ছবি ভেসে ওঠে। এ ছাড়া ওয়েব পোর্টালটিও তেমন স্বয়ংসম্পূর্ণ নয়।

ওয়েবসাইটটি বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থীর অভিভাবকের কথা হয়। বিষয়টি শুনে সবাই বিস্মিত। এ জন্য তাঁরা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও তথ্যপ্রযুক্তিবিষয়ক শিক্ষকের খামখেয়ালিপনাকে দায়ী করেছেন।

ভাংবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আবদুল লতিফ বলেন, প্রায় তিন বছর আগে ওয়েবসাইটটি তৈরি করা হয়। তখন থেকেই লোগোর জায়গায় নায়িকার ছবি রয়েছে। এ ব্যাপারে তাঁর কাছে কেউ কখনো কোনো আপত্তি তোলেননি। লোগোটি কার সিদ্ধান্তে, কীভাবে, কে বসিয়েছেন—জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক বলেন, কম্পিউটার (তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি) শিক্ষক ইয়াসমিন আরা সেটা বলতে পারবেন। পরক্ষণেই তিনি জানান, শিক্ষক ইয়াসমিন আরা সেভাবে কম্পিউটারের কাজ বোঝেন না। বাইরের দোকান থেকে ওয়েবসাইটের তথ্য হালনাগাদ করা হয়। সম্ভবত ওই দোকান থেকে নায়িকার ছবি সংযোজন করা হতে পারে। আজ বিকেলে ইয়াসমিন আরার মোবাইলে ফোন করা হলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

একপর্যায়ে এই প্রতিবেদককে প্রধান শিক্ষক বলেন, ‘যদি সমস্যা মনে করেন, তাহলে ছুটি শেষে বিদ্যালয় খুললে স্কুলের লোগো বসানো হবে।’

মুঠোফোনে বিষয়টি জানানো হলে যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আবদুল আলীম বিস্ময় প্রকাশ করেন। বোর্ডের স্কুল পরিদর্শক আহসান হাবীব ভাংবাড়িয়া বিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের রুচি নিয়ে প্রশ্ন তোলেন এবং নিন্দা জানান।

পরবর্তীতে লোগোটি পরিবর্তন করা বর্তমানে যেই লোগোটি দেওয়া হয়েছে, সেখানে http://gklearner.com/ ওয়েবসাইটের লিংক দেওয়া রয়েছে।

এখন প্রশ্ন হল, আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থার যদি এত উন্নতি হয়, তাহলে আমরা কোথায় যেয়ে শিখব?

বি:দ্র: আমাদের প্রতিটি লেখার নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুকপেজ-এ লাইক দিন এবং বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। আপনার মনে কোন প্রশ্ন থাকলে এবং যেকোন বিষয়ে জানতে চাইলে অথবা আপনার কোন লেখা প্রকাশ করতে চাইলে আমাদের ফেসবুক পেজ বিডি লাইফ এ যেয়ে ম্যাসেজ করতে পারেন।

ফেসবুকের হোমপেজে নিয়মিত আপডেট পেতে নিচের লাইক বাটনে ক্লিক করুন

মন্তব্য করুনঃ

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন
দয়া করে আপনার নাম লিখুন

twelve − 8 =