বাচ্চার মেধা বিকাস

সন্তান মানুষ করা বেশ কঠিন কাজ। সেটা করতে গিয়ে নিজেকেও যেমন অনেকের কাছ থেকে অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করতে হয়, তেমনই আগ বাড়িয়ে অনেকের উপদেশও শুনতে হয়। তবে সন্তানের জন্য সবচেয়ে প্রয়োজনীয় অভিভাবক কিভাবে বিষয়গুলি সামলাচ্ছেন তার উপরে। কারণ বাচ্চাদের সবচেয়ে কাছের মানুষ তারাই হন। অভিভাবকদের আচরণ ও ব্যবহারে সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়ে শিশুদের উপরে। সকলেই চান তাদের সন্তান যেন ভালোভাবে মানুষ হয়। তবে কোন পদ্ধতি বা পন্থা অবলম্বন করলে সন্তান ভালোভাবে মানুষ হতে পারে, তা অনেক সময়ে আমরা ভালো করে বুঝে উঠতে পারি না। আর সেজন্যই অনেক সময়ে কিছু কারণে বাচ্চার আত্মবিশ্বাস একেবারে তলানিতে এসে ঠেকে। কোন কোন বিষয়গুলি এর জন্য দায়ী তা জেনে নিন যাতে আপনার বাচ্চার আত্মবিশ্বাসে কখনও কমতি না হয়।

ভুল হলেই চেঁচানো
বাচ্চারা ভুল করবেই। যদি সবসময়ই তার জন্য চেঁচান বা বকাবকি করেন, তাহলে বাচ্চার আত্মবিশ্বাসে চিড় ধরে। যদি তাকে শুধরাতে চান, তাহলে ডেকে আলাদা করে কথা বলুন। তাকে বোঝান, কোথায় ভুল হল।

তুলনা টানা
অন্যদের সঙ্গে নিজের বাচ্চাকে তুলনা করবেন না। প্রত্যেকেই আলাদা ব্যক্তিত্বের। সকলের আলাদা গুণ রয়েছে। সেটা মাথায় রাখবেন।

বেশি ভালোবাসা
নিজের বাচ্চাকে ভালোবাসবেন তাতে দোষের কিছু নেই। তবে অতিরিক্ত আদিখ্যেতা, ভালোবাসায় নিজের আত্মবিশ্বাসের জায়গাটাই বাচ্চা তৈরি করতে পারবেন না। সেটা মাথায় রাখবেন।

সকলের সামনে অপমান করা
বাচ্চা যাই ভুল করুন না কেন, সকলের সামনে তাকে মারধর করা বা অপমান করা ইত্যাদি করবেন না। প্রয়োজনে আলাদা ডেকে কথা বলুন।

বাহবা না দেওয়া
বাহবা দিলে বা সাহস দিলে বাচ্চাদের আত্মবিশ্বাস অনেক বেড়ে যায়। তাই ছোট-বড় সব কাজেই বাচ্চাদের বাহবা দিন।

অন্যদের দেখে কাজ করা
অন্য বাবা-মায়েরা কীভাবে বাচ্চাকে মানুষ করছেন, সেটা দেখে একই জিনিস নিজের বাচ্চার উপরে খাটানোর চেষ্টা করবেন না। প্রতিটি শিশুই আলাদা ধাঁচে তৈরি। তাই সকলকে আলাদা আলাদাভাবে মানুষ করতে হবে।

বেশি শৃঙ্খলা
শৃঙ্খলা অবশ্যই প্রয়োজন। তবে বেশি শৃঙ্খলার জালে বাচ্চাকে আবদ্ধ করতে গিয়ে শৈশব যাতে না নষ্ট হয়ে যায় ও বাচ্চা যাতে বিপদগামী না হয়ে পড়ে, সেদিকে লক্ষ্য রেখে সন্তান মানুষ করুন।

বি:দ্র: প্রতিটি লেখার নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুকপেজ-এ লাইক দিন এবং বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। যেকোন বিষয়ে জানতে চাইলে এবং আপনার কোন লেখা প্রকাশ করতে চাইলে আমাদের ফেসবুক পেজ বিডি লাইফ এ যেয়ে ম্যাসেজ করতে পারেন।

ফেসবুকে আপনার হোমপেজে নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন