প্রতিবাদ

হিমাদ্রি মুখার্জী

বেশ কিছু সময় কাটে তেতলার জানালা র পাশে বসে । রাস্তার দিকেই জানালা । ফলে রাস্তার অনেক ঘটনা চোখে পড়ে । কে কখন বাজারে যাবে , কে কখন ফিরবে , কি ভাবে ফিরবে হাসবে না গাইবে না নাচবে , সব তালুর মত চেনা। আবার হন্ত্ দন্ত হয়ে কে অফিস ছুটবে, সব মুখস্থ । এক এক করে সব সিনেমার দৃশ্যের মত চলতে থাকে। কখনো অনেক মজার কাণ্ড ঘটে বৈকি ! মনের খোরাক জোটে ভাল । এরই মাঝে ইদানীং দেখছি একটা ঘেয়ো নেড়ি প্রায় দশটা সাড়ে দশটায় রাস্তায় দেখা দেয় । ওই পাশে বাদাম গাছটার গোড়ায় কি শুঁকে , বার কয়েক ঘোরে, তারপর আদিম কায়দায় পেছনের একটা ঠ্যাং তুলে মূত্র কর্ম সারে । কদিন বাদে দেখি ওরই মত ঘেয়ো এক সঙ্গী । সেদিন সেটাও একই কায়দায় কর্ম সারল । তার পর দুটো ই চলে গেল । এখন তো ওরা রোজ সময় মত আসে , অপকর্ম সারে, আরকেটে পড়ে। এর মাঝে একদিন সন্ধায় পাশের বাড়ির ছেলে টা ওই বাদাম গাছের গোড়ায় ইচ্ছে মত কায়দায় আঁকি বুকি করে পেচ্ছাব সারল । পরদিন নেড়ি ও বন্ধু রা যথা সময়ে হাজির । অভ্যাস মত একজন বাদাম গাছের দিকে গেল। কিছু শুঁকল , ভাল করে শুঁকল । এ সময় আর নিত্য কর্ম টি করল না । এগিয়ে এল সখার কাছে, কি বলল কে জানে । দ্বিতীয় নেড়িটা এগিয়ে গেল বাদাম গাছটার দিকে । গোয়ন্দা কায়দায় তাকাল, পর্যবেক্ষণ করল, ঘুরল ,এদিক ওদিক করল, বার কয়েক শুঁকল , তারপর ফিরে এল বন্ধুর কাছে । হঠাৎ করে মুখ উপরে তুলে পরিত্রাহী চিত্কার। কিছু সময় কুঁই কুঁই করল । রহস্য বুঝতে পারছিনা । কিছু পরে মনে হল দুই সখা বীরদর্পে এগিয়ে গেল বাদাম গাছের দিকে । গোড়ায় বার কয়েক ঘুরল , কয়েক বার কুঁই কুঁই করল । তারপর অবাক করে দু বন্ধু গাছের দুদিকে আদি অকৃত্রিম পদ্ধতি তে বসে বিষ্ঠা ত্যাগ করল। কর্ম শেষে রাস্তায় এসে আবার উপরে মুখ তুলে করুণ সুরে চিত্কার করে যেন গলা ফাটিয়ে জানাচ্ছে…. ” সামান্য একটু ইয়ের জায়গা বেছেছিলাম , তা ও বে দখল করে নিল অমানুষ রা । হেগে রেখে যাচ্ছি, শ্যালারা ওটা চেটে খাস ।”
তার পরে পরেই রাস্তার এদিক ওদিক পাশের গলি থেকে সারমেয় কুলের বেশ বিপুল চীত্কার । কখনো সমস্বরে কখনো আলাদা ঘেউ – উ -উ বা অউ – উ- উ ঘ্যাক , ঘ্যাক অ-অ-অ …..। কাণ পেতে শুনে অর্থ বোঝার চেষ্টা করছি ।
বুঝলাম মানুষ কুলের কাছাকাছি থেকে রাজনীতি রপ্ত করে ফেলেছে …. কখনো বলছে ‘ মানব কুল ” প্রত্যুত্তর ‘ ধিক্ ধিক্ ‘ ( ভোক ভোক ) ! কখনো বলছে ‘ চলবে না, চলবে না ‘ ( আউউ আউ ) কখনো ‘ কালো হাত ‘ সমস্বরে জবাব ‘ মুড়িয়ে দাও ‘ ( ঘেউউ ঘ্যাক ) !
অবাক হয়ে ভাবছি ওরা আমাদের মিটিং মিছিল দেখে কতখানি রাজনীতি সচেতন হয়ে উঠেছে । কুকুর গুলো কেমন জোটবদ্ধ । তাদের নিজেদের মত করে আমাদের শ্লোগান গুলো কেমন উল্টে পাল্টে যুতসই মত লাগিয়ে দিচ্ছে , লড়াই চালাচ্ছে। এখন থেকে সমঝে চলতে হবে না হলে বিপদ আছে ভবিষ্যতে ।।

বি:দ্র: আমাদের প্রতিটি লেখার নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুকপেজ-এ লাইক দিন এবং বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। আপনার মনে কোন প্রশ্ন থাকলে এবং যেকোন বিষয়ে জানতে চাইলে অথবা আপনার কোন লেখা প্রকাশ করতে চাইলে আমাদের ফেসবুক পেজ বিডি লাইফ এ যেয়ে ম্যাসেজ করতে পারেন।

ফেসবুকের হোমপেজে নিয়মিত আপডেট পেতে নিচের লাইক বাটনে ক্লিক করুন

⇒ লেখাটি ভালো লাগলে প্লিজ বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। শেয়ার করতে √ এখানে ক্লিক করুন

আপনার ফেসবুক একাউন্ট থেকে খুব সহজেই কমেন্ট করুন

মন্তব্য করুনঃ

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন
দয়া করে আপনার নাম লিখুন

fifteen + fourteen =