নখের যত্ন

নিজেকে আরও বেশী আকর্ষণীয়, স্মার্ট, ফ্যাশনবল করতে সুন্দর পরিষ্কার স্বাস্থ্যবান নখের কোন বিকল্প নেই। কিন্তু এই নখই অনেক সময় আমাদের ভুলের কারণে হলদেটে হয়ে যায়। নখ হলুদ হওয়ার প্রধান এবং অন্যতম কারণ হল আপনার প্রিয় নেইলপলিশ। নেইলপলিশের পিগমেন্ট মূলত নখের রং পরিবর্তন করে থাকে। নেইলপলিশের এই পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার হাত থেকে বাঁচতে নেইলপলিশ দেওয়ার আগে ক্লিয়ার বেইজ কোট নেইলপলিশ ব্যবহার করে নিন। এছাড়া ফাঙ্গাল ইনফেকশন, লিভারের সমস্যা, অতিরিক্ত ধূমপান ইত্যাদি কারণে নখের রং হলুদ হতে পারে। নখের হলদেটে এই ভাব দূর করা সম্ভব ঘরোয়া কিছু উপায়ে।

লেবু হল প্রাকৃতিক ব্লিচিং উপাদান, যা নখের হলদেটে ভাব দূর করে নখের গোলাপি আভা ধরে রাখে। একটি বাটিতে পর্যাপ্ত পরিমাণে লেবুর রস নিন। ১০/১৫ মিনিট লেবুর রসে নখ ভিজিয়ে রাখুন। এরপর একটি টুথব্রাশ দিয়ে নখের হলুদ অংশগুলো আলতো করে ঘষুন। কুসুম গরম পানি দিয়ে নখ ধুয়ে ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। ভাল ফল পেতে দিনে দুবার করুন।

২। হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড এবং বেকিং সোডাঃ

এক টেবিল চামচ হাইড্রোজেন পারঅক্সাইডের সাথে দুই এবং আধা টেবিল চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে নিন। এবার একটি তুলোর বলে মিশ্রণটি লাগিয়ে নখের উপর ঘষুন। এটি নখে লাগিয়ে তিন মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে ৫-৬ বার ব্যবহার করুন। খুব বেশী জেদি দাগ হলে হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড সরাসরি দাগের উপর ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে সতর্ক থাকবেন হাইড্রোজেন পারঅক্সাইডের পরিমাণ যেন বেশী না হয়ে যায়।

৩। টুথপেষ্টঃ

সাদা টুথপেষ্ট যেভাবে আমাদের দাঁত সাদা করে থাকে তেমনি এটি নখের হলদেটে ভাব দূর করে নখকে সাদা করে থাকে। নখের হলদে দাগের ওপর সাদা টুথপেষ্ট লাগান। ৫/১০ মিনিট পর সেটি ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে তিন বার করুন।

৪। টি ট্রি অয়েলঃ

নখের উপর কয়েক ফোঁটা টি ট্রি অয়েল দিয়ে দিন। এবার এটি কয়েক মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর কুসুম গরম পানি দিয়ে হাত ধুয়ে ফেলুন। এটি দিনে দুইবার করুন। এছাড়া সমপরিমাণ অলিভ অয়েল এবং টি ট্রি অয়েল মিশিয়ে নখের উপর ব্যবহার করুন। এটি কয়েক সপ্তাহ ব্যবহার করলে নখের দাগ গায়েব হয়ে যাবে।

৫। কমলার খোসাঃ

কমলার খোসা ত্বকের যত্নে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। এই কমলার খোসা দিয়ে খুব সহজে নখের দাগ দূর করা সম্ভব। কমলার খোসা প্রতিদিন নখের উপর ঘষুন। এটি প্রতিদিন কয়েক সপ্তাহ করুন। দেখবেন কিছুদিনের মধ্যে নখের হলদে ভাব দূর হয়ে গেছে।

বি:দ্র: আমাদের প্রতিটি লেখার নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুকপেজ-এ লাইক দিন এবং বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। আপনার মনে কোন প্রশ্ন থাকলে এবং যেকোন বিষয়ে জানতে চাইলে অথবা আপনার কোন লেখা প্রকাশ করতে চাইলে আমাদের ফেসবুক পেজ বিডি লাইফ এ যেয়ে ম্যাসেজ করতে পারেন।

ফেসবুকের হোমপেজে নিয়মিত আপডেট পেতে নিচের লাইক বাটনে ক্লিক করুন

⇒ লেখাটি ভালো লাগলে প্লিজ বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। শেয়ার করতে √ এখানে ক্লিক করুন

আপনার ফেসবুক একাউন্ট থেকে খুব সহজেই কমেন্ট করুন

মন্তব্য করুনঃ

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন
দয়া করে আপনার নাম লিখুন