জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল

বি:দ্র: লেখাটি শুধুমাত্র দাম্পত্য জীবনে কিছু গোপন সমস্যা সমাধান ও কিছু প্রশ্ন-উত্তর জানার জন্য পোস্ট করা হয়েছে। কোন প্রকার যৌন উত্তেজনা সৃস্টি করার জন্য লেখাটি প্রকাশ করা হয়নি। শুধুমাত্র প্রাপ্তবয়স্করাই এই লেখাটি দয়া করে পড়বেন। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর ইসলামের আলোকে আলোচনা করা হয়েছে। 

বেশির ভাগ নারীই জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল খান। অনাকাঙ্খিত জন্মনিয়ন্ত্রণ রোধ এবং মাসিক ঠিক করার জন্য পিল খেয়ে থাকেন। কিন্তু এই পিল সম্পর্কে মানুষের ধারণা খুব কম।

একজন নারীর জন্য পিল কখনোই ভালো কিছু না বরং একজন নারীকে ধীরে ধীরে শেষ করতে এই পিলই যথেষ্ট।

চিকিৎসকের মতে, যত কম পিল খাওয়া যায় একজন নারীর জন্য তা ততই ভালো। এক্ষেত্রে নিয়মিত পিল না খেয়ে কিছুদিন গ্যাপ রেখে রেখে খেতে পারেন।

দেখে নেওয়া যাক কী কী সমস্যা হতে পারে পিল খেলে—

-পিল খেলে হার্ট হ্যাটাক হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। ৩৫ বছরের বেশি নারীদের কখনোই পিল খাওয়া উচিত না কারণ এতে হার্ট এট্যাক হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

-পিলে লেভেনোগ্যাস্ট্রেল ও ৩০ মিলিগ্রাম ইস্ট্রোজেন থাকে, যেসব মেয়েদের মাইগ্রেন থাকে তারা যদি পিল কন্টিনিউ করে তাহলে তাদের স্ট্রোকের সম্ভাবনা বেশি থাকে।

-উচ্চ রক্তচাপের একটি উল্লেখযোগ্য কারণ হলো পিল সেবন।

-যারা বেশি পিল খান তাদের ভেনাস থ্রোম্বোএম্বলিসম নামক রোগ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

-বেশি মাথা ব্যথা হয়।

-হতাশার একটি কারণও হলো অতিরিক্ত পিল খাওয়া।

-খিটখিটে মেজাজ ও দেখা যায় পিল খাওয়ার কারণে।

-বমি বমি ভাব এবং বমি হয়।

-ব্রেস্টে অনেক ব্যথা হয়।

-যারা পিল খান নিয়মিত তারা সেক্সের সময় তেমন আনন্দ পায় না।

-ওজন বেড়ে যায়।

-৩ বছরের বেশি পিল খেলে তাদের গ্লুকোমা হয়।

বি:দ্র: আমাদের প্রতিটি লেখার নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুকপেজ-এ লাইক দিন এবং বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। আপনার মনে কোন প্রশ্ন থাকলে এবং যেকোন বিষয়ে জানতে চাইলে অথবা আপনার কোন লেখা প্রকাশ করতে চাইলে আমাদের ফেসবুক পেজ বিডি লাইফ এ যেয়ে ম্যাসেজ করতে পারেন।

ফেসবুকের হোমপেজে নিয়মিত আপডেট পেতে নিচের লাইক বাটনে ক্লিক করুন

⇒ লেখাটি ভালো লাগলে প্লিজ বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। শেয়ার করতে √ এখানে ক্লিক করুন

আপনার ফেসবুক একাউন্ট থেকে খুব সহজেই কমেন্ট করুন

মন্তব্য করুনঃ

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন
দয়া করে আপনার নাম লিখুন

10 + four =